জেনে নিন ডায়বেটিস সম্পর্কে-থাকুন স্বাস্থ্য সচেতন

ডায়বেটিস
ডায়বেটিস
ডায়বেটিস কি?

ডায়বেটিস শরীরে ইনসুলিন নামক এক বিশেষ ধরণের হরমোনের ঘাটতি জনিত রোগ।ইনসুলিনের অভাবে আমাদের শরীরে উৎপাদিত শক্তি ব্যাবহৃত হতে পারে না ফলে ঘন ঘন ক্ষুধা পায় ও শরীরে দুর্বলতা দেখা যায়।তবে আশার কথা হল,ডায়বেটিস ততক্ষন পর্যন্তই একটি ভয়ানক অসুখ যতক্ষণ পর্যন্ত এটি নিয়ন্ত্রণে না থাকে।সঠিক চিকিৎসা,জীবন পদ্ধতি অবলম্বন ও নিয়মিত শরীরচর্চার মাধ্যমে একে নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব।



ডায়বেটিস এর ধরণ
ডায়বেটিস এর ধরণ
ডায়বেটিস প্রধানত ৩ ধরণের হয়ঃ

১। টাইপ-১ ডায়বেটিসঃ

আপনার শরীরে ইনসুলিন উৎপাদন ক্ষমতা পরিমানের তুলনায় কম ফলে আপনার শরীরে উৎপাদিত শক্তি ব্যাবহৃত হতে পারে না।

২। টাইপ-২ ডায়বেটিসঃ

আপনার ইনসুলিন উৎপাদন ক্ষমতা স্বাভাবিক কিন্তু আপনার শরীর একে পুরোপুরি ব্যাবহার করতে পারেনা। এ ধরণের ডায়বেটিস সর্বাধিক পাওয়া যায়।

৩। জেস্টেশনাল বা গর্ভকালীন ডায়বেটিসঃ

সাধারণত মেয়েদের গর্ভধারণ কালীন সময়ে এ ধরণের ডায়বেটিস দেখা যায়, বাচ্চা জন্মের পর-পরই এটি ভালো হয়ে যায়।তবে উল্লেখ্য যে এক্ষেত্রে পরবর্তী জীবনে মা ও বাচ্চা দুজনের ই ডায়বেটিস দেখা দিতে পারে।


ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণ কেন জরুরিঃ
ডায়বেটিস থেকে সৃষ্ট অসুখ
ডায়বেটিস থেকে সৃষ্ট অসুখ


ডায়বেটিস থেকে অনেক বড় বড় অসুখের উৎপত্তি, যা আপনার আয়ুষ্কাল কমিয়ে দিতে পারে আপনার জীবনকে করে তুলতে পারে ঝুঁকিপূর্ণ।অনিয়নত্রিত ডায়বেটিস আপনাকে তিলে তিলে নিঃশেষ করে দিতে পারে, এজন্য ডায়বেটিস এর অপর নাম নিরব ঘাতক।


১। চোখঃ ডায়বেটিক রোগীদের চোখে ছানি পড়া,কঞ্জাংটিভাইটিস, গ্লুকোমা, ডায়বেটিক রেটিনোপ্যাথি ইত্যাদি রোগ দেখা দিতে পারে।

২। কিডনিঃ ডায়বেটিক রোগীদের নেফ্রাইটিস,ডায়বেটিক নেফ্রোপ্যাথি, অ্যাকিউট রেনাল ফেইলিউর সহ আরও অনেক জটিল অসুখ দেখা দিতে পারে।


৩।স্নায়ুবিক জটিলতাঃ ডায়বেটিক রোগীদের নার্ভ এর অসুখ যেমন ডায়বেটিক নিউরোপ্যাথি দেখা দিতে পারে এর ফলে হাত-পা এ জ্বালা

যন্ত্রণা হয় ও শরীরে অস্বস্তি বোধ হয়। এছাড়া হাত পা এ অবশ বা সেন্সরি ডেফিসিয়েন্সি দেখা দিতে পারে,ফলে বোধ শক্তি কমে যায়।

৪।রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাঃ ডায়বেটিক রোগীদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায় ফলে শরীরে নানা রকম সংক্রামক রোগ দেখা যায়।

৫। হার্টের অসুখঃ ডায়বেটিক রোগীদের বিভিন্ন হার্টের অসুখ যেমন করনারি আরটারি ডিজিজ, স্ট্রোক এর ঝুঁকি তুলনামূলক বেশী থাকে।



ফটো কার্টেসি- ইন্টারনেট

Post a Comment

0 Comments